অতিরিক্ত ওজন কমায় যয়তুনের তেল

সুস্বাস্থ্যের বিবেচনায় অনেকেই সয়াবিনের বিকল্প হিসেবে যায়তুন বা এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েলকে খাদ্যাভ্যাসে যুক্ত করে নিয়েছেন। কেউ কেউ খুব করে এতে অভ্যস্ত হতে চান কিন্তু তাদের সিদ্ধান্তটা খরচ বৃদ্ধির ব্যাপারটায় আটকে যায়। তাদের জন্য এই তথ্য গুলো অনেকটা আই ওপেনারের মতো।

◾যায়তুনের তেলে বেশ ভালো মাত্রায় এ্যান্টি অক্সিডেন্টের উপস্থিতি রয়েছে। বায়োলজিক্যালি এক্টিভ এই এ্যান্টি অক্সিডেন্ট গুলো ক্রনিক ডিজিজ এর ঝুঁকি কমিয়ে আনতে সক্ষম। ◾যায়তুনের তেলে রয়েছে উপকারী ওমেগা 6 আর ওমেগা 3 ফ্যাটি এসিড সমূহ। ◾এই তেলের ৭৩ শতাংশই হলো ওলেইক এসিড নামের একটি বিশেষ মনোস্যাচুরেটেড ফ্যাট। বলা হয়ে থাকে, এই ওলেইক এসিড, ক্যান্সারের মতো শত্রুর বিরুদ্ধে লড়াই করে।◾এটি ইনফ্ল্যামেশন রোধেও ভূমিকা রাখে। ◾পরিপাক প্রক্রিয়াকে সহজতর করে।◾উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে। ◾নিয়মিত যায়তুন তেলের ব্যবহার হৃদরোগ সংক্রান্ত জটিলতা হ্রাসে ভূমিকা রাখে। ◾রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। এটি রক্তে এলডিএল বা ক্ষতিকর কোলেস্টেরল এর প্রভাব কমিয়ে আনে। ◾ যায়তুন এর তেলের নিয়মিত ব্যবহার শরীরের অতিরিক্ত ওজন কমায়।◾ত্বক আর চুলের জন্য ভীষণ উপকারী যায়তুন এর তেলের অবদান তো সর্বজন বিদীত।

এবার আপনারা বরং এর উপকারে বহর আর দাম, দুটোকে পাশাপাশি রেখে একটা ক্যালকুলেশন করে নিন। কী সিদ্ধান্ত নিলেন শেষ পর্যন্ত, জানার অপেক্ষায় রইলাম কিন্তু।

X