ঠাণ্ডা কাশিতে জিনোলিভ

ফজরের জামাত শেষে আবির এদিক-ওদিক তাকিয়ে খুঁজল বন্ধু ফাহিমকে। ও পর পর তিন দিন মাসজিদে আসেনি।

ইশরাকের সলাতটা পড়েই আবির রওনা দিল ফাহিমের বাসার দিকে।

ফাহিমের ঠান্ডা লেগেছে অনেক, কাশিও ছিল বেশ। খারাপই লাগল আবিরের বন্ধুর অবস্থা দেখে।
– আদা চিবিয়ে খা, গলায় আরাম লাগবে।
– আমি কাঁচা আদা চিবিয়ে খেতে পারি না যে।

ওই দিন রাতেই আবির সরোবরের থেকে কেনা দুটো জিনোলিভ থেকে একটা জিনোলিভের বোতল নিয়ে গেল বন্ধুর বাসায়।
– এটা কি?
– সরোবরের আবিষ্কৃত পণ্য, জিনোলিভ। জলপাই এবং আদার গুঁড়া মিশ্রণে তৈরি। ফুটন্ত পানিতে এক চামচ জিনোলিভ মিশিয়ে কিছুক্ষণ জ্বাল দিবি। এরপর ছেঁকে নিয়ে এক চামচ মধু মিশিয়ে নিবি। তুই তো কাঁচা আদা খেতে পারিস না, এটা খেয়ে দেখ ভালো লাগবে।

কিছুদিন পরে, আবির ফাহিমের অফিসে একটা কাজে গিয়েছিল। কাজ শেষে চলে আসার সময় আবিরকে এক কাপ জিনোলিভ দিল অফিস অ্যাসিসটেন্ট!
– জিনোলিভ?
– হ্যাঁ। এখন শুধু কাশির জন্য না; চায়ের বদলে আমি জিনোলিভ খাই ও খাওয়াই। এত উপকারী একটা জিনিস, আল্লাহু আকবার। তোকে অনেক ধন্যবাদ বন্ধু, যাজাকাল্লাহু খাইর – আল্লাহ তোকে উত্তম প্রতিদান দিন।

X